রিপোর্টঃ সুমন আখন্দ শুভ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) সদ্য স্থাপিত স্ট্রোক সেন্টারে চিকিৎসা নিয়ে প্রাণে রক্ষা পেলেন কৃষক লীগ সভাপতি সমীর চন্দ।বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্ট্রোক সেন্টারে সমীর চন্দ অ্যাকিউট স্ট্রোক ম্যানেজমেন্টের  চিকিৎসা নেন। রাত আটটার দিকে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, তিনি এখন পুরোপুরি সুস্থ আছেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনিস্টিউশনে কৃষক লীগ আয়োজিত ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবসের আলোচনা সভায় অসুস্থ হয়ে পড়েন সমীর চন্দ।

বিষয়টি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ জানতে পারেন এবং দ্রুত সমীর চন্দকে বিএসএমএমইউর স্ট্রোক সেন্টারে নিয়ে আসতে বলেন। পাশাপাশি তিনি বিএসএমএমইউর স্ট্রোক সেন্টারের নিউরোলজি বিভাগে কর্মরত চিকিৎসকদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন।

এ বিষয়ে নিউরোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. আবু নাসার রিজভী

SA বাংলা নিউজকে বলেন, অ্যাকিউট স্ট্রোক ম্যানেজমেন্ট বাংলাদেশে নতুন শুরু হয়েছে। যদিও পৃথিবীতে এটি বেশ আগে আমেরিকায় শুরু হয়। একজন রোগী স্ট্রোকে আক্রান্ত হবার পর সাড়ে চার ঘণ্টার মধ্যে স্ট্রোক সেন্টারে এলে চিকিৎসকরা তার সিটিস্ক্যান করার পর ওষুধ দেন। ওষুধের মাধ্যমে স্ট্রোকে পঙ্গুত্ব, একপাশ দুর্বল হয়ে যাওয়ার মতো সমস্যা কেটে যায়। ফলে রোগী সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে যায়।

তিনি বলেন, হাসপাতালে আসার পর সমীর চন্দকে স্ট্রোক সেন্টারে ভর্তি করে সিটিস্ক্যান করে ওষুধ দিই। এতে তিনি সুস্থ হয়ে ওঠেন। কৃষক লীগ সভাপতি সমীর চন্দ প্রথম রোগী, যিনি স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার আধা ঘণ্টার মধ্যে অ্যাকিউট স্ট্রোক ম্যানেজমেন্টের আওতায় এখানে চিকিৎসা নিয়েছেন। তিনি এখন সুস্থ আছেন

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে