রিপোর্টঃ সুমন আখন্দ শুভ

রাজধানীর খিলগাঁও মেরাদিয়া বড়বাড়ি এলাকায় এক কিশোরী (১৪) আত্মহত্যা করেছে। মেয়েটির বাবা অভিযোগ করেছেন, সে ধর্ষণের শিকার হয়ে আত্মহত্যা করেছে। এ ঘটনায় খলিল (২২) নামে একজনকে আটক করেছে খিলগাঁও থানা পুলিশ।

সোমবার (২৫ এপ্রিল) সন্ধ্যায় অচেতন অবস্থায় ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

কিশোরীর বাবা SA বাংলা নিউজ কে বলেন, আমি দুপুরে বাসায় শুয়ে ছিলাম। আমার মেয়ে এসে আমাকে বলল, বাবা খলিল আমাকে নষ্ট করেছে। এরপর সে কীটনাশক জাতীয় কিছু খেয়ে অচেতন হয়ে পড়ে। তাকে উদ্ধার করে বনশ্রীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাই। সেখান থেকে তাকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে গেলে ডাক্তার জানায় সে মারা গেছে।

তিনি আরও জানান, পরে থানায় গেলে পুলিশ এসে খলিলকে আটক করে। বর্তমানে সে খিলগাঁও থানা পুলিশের হেফাজতে রয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে খিলগাঁও থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুজিত কুমার সাহা

SA বাংলা নিউজ কে বলেন, আমরা ঘটনাটি জানার পর ঢাকা মেডিকেলে একটি টিম পাঠিয়েছিলাম। নিহত কিশোরীর বাবা থানা এসেছিলেন। তবে এটি ধর্ষণের ঘটনা কি না সে বিষয়ে আমরা এখনও নিশ্চিত নই। মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। তদন্ত চলছে, SA বাংলা নিউজে চোখ রাখুন বিস্তারিত পরে জানাবো।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে